“কোনো সম্মাননাতেই শিক্ষকদের ঋণ শোধ হয়না”

 শিক্ষাবিদ মরহুম চৌধুরী মুহাম্মদ তৈয়বের স্মরণ সভা সম্পন্ন

সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও “শিক্ষকদের ঋণ কখনোই শোধ করা যায় না। কোনো সম্মাননা দিয়ে বা আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে এ ঋণ শোধ করা সম্ভব নয়। তবে এসবের মাধ্যমে শিক্ষকদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ করা যায়, ঋণ শোধের প্রচেষ্টা চালানো যায়।” কক্সবাজারের স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ খুটাখালী কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন এর প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক মরহুম আলহাজ্ব চৌধুরী মুহাম্মদ তৈয়বের স্মরণ সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে স্কুল মাঠে মরহুমের স্মরণ সভা ও প্রয়াত শিক্ষকদের সম্মাননা স্মারক প্রদান অনুষ্ঠান আয়োজন করেন কিশলয় প্রাক্তন ছাত্র সংসদ (কিপ্রাছাস)। প্রাক্তন ছাত্র ও কিশলয়ের সহকারী শিক্ষক কাজী আফফান চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতি করেন প্রাক্তন শিক্ষার্থী, বগুড়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ কাজী মিজানুর রহমান। প্রাক্তন শিক্ষার্থী আনোয়ার হোসাইনের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে স্মরণ সভায় স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া আবাসিক মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এস এম মনজুর, তমিজিয়া ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ মু. ওমর হামজা, খুটাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আব্দুর রহমান, ঈদগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল জাহান চৌধুরী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন, সাধারণ সম্পাদক বাহাদুর হক, অবসরপ্রাপ্ত সহকারী প্রধান শিক্ষক বাহাদুর হক, প্রাক্তন শিক্ষক-পটিয়া উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শাহাব উদ্দীন, শিক্ষক মুমিনুল হক চৌধুরী, প্রাক্তন ছাত্র ও সেনাবাহিনীর মেজর সোহরাব হোসাইন, জাতিসংঘ কর্মকর্তা ওমর শরীফ শিবলী, বদরখালী কলেজের অধ্যক্ষ মুজিবুর রহমান, ডুলাহাজারা কলেজের অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম, এনামুল হক, হুমায়ুন কবির, মুজিবুল হুদা শাকিল ও এড. খালেদ সালা উদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কিপ্রাছাস যাদেরকে মরনোত্তর সম্মাননা স্মারক প্রদান করেছেন তারা হলেন- আলহাজ্ব চৌধুরী মুহাম্মদ তৈয়ব, নুর আহমদ, আফজাল আহমদ,আহমদ রেজা খান, মনির আহমদ, সরওয়ার আলম, আশরফ উজ্জামান, মৌলানা মোহাম্মদ উল্লাহ হোছাইনী, নুরুল আবছার, আবু বকর, আবছার কামাল, মনজুরুল ইসলাম সিকদার, রফিকুল ইসলাম ও মোহাম্মদ সুলতান প্রমূখ। প্রাক্তন শিক্ষার্থী মো: বেলাল উদ্দীন, কাজী সাইফুর রহমান, নুরুল আবছার, নাছির উদ্দীন , মো: ইমরান হোছাইন, জুলকর নাঈন, মো: আবু সাঈদ, শীষ মো: রাশেল, কায়েস, সাদ্দাম ও তাহাছিনুরের সার্বিক সহযোগিতায় অনুষ্টানে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা নজরুল ইসলাম জিহাদী। উল্লেখ্য, একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রূপকার, মানুষ গড়ার কারিগর আলহাজ্ব চৌধুরী মুহাম্মদ তৈয়ব গত ২ এপ্রিল দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন। পরদিন (৩ এপ্রিল) তাঁর হাতে গড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিশলয় স্কুল মাঠে বুধবাার বিকেল সোয়া পাঁচটার দিকে নামাজে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় ইমামতি করেন তাঁরই ভাই আজিজুল হক। পরে খুটাখালী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।