শতভাগ ‘মুক্তিযোদ্ধা কোটা’র দাবিতে একাই মানববন্ধনে

শতভাগ ‘মুক্তিযোদ্ধা কোটা’র দাবিতে একাই মানববন্ধনে দাঁড়ালেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী সৈয়ব আহমেদ সিয়াম।

শনিবার (৮ জুন) বেলা ১২টার দিকে চবির বুদ্ধিজীবী চত্বরে একাই ‘শতভাগ মুক্তিযোদ্ধা কোটার দাবিতে মানববন্ধন’ লেখা একটি ফেস্টুন হাতে দাঁড়ান এ শিক্ষার্থী।

সৈয়ব আহমেদ সিয়াম বলেন, আমি আজকে তিন দফা দাবি নিয়ে একক অবস্থান কর্মসূচিতে হাজির হয়েছি। ২ দশমিক ৬৩ শতাংশ মানুষের জন্য ৫৩ শতাংশ কোটা বরাদ্দ করা হচ্ছে।
এরচেয়ে আমি বরং চাকরি এবং বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা উভয় ক্ষেত্রে শতভাগ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাস্তবায়নের দাবি জানাচ্ছি।

প্রশ্ন আসবে, বাকিরা কী করবে তাহলে? এই জন্যই জন্মের পূর্বেই ভ্রূণের ক্ল্যাসিফিকেশনের মাধ্যমে পূর্ণ বর্ণবাদ প্রতিষ্ঠা করতে হবে। কোটাধারীরা হবে ব্রাহ্মণ। তারাই শুধু পড়াশোনা ও উচ্চপদে চাকুরির সুযোগ পাবে। কোটা সমর্থনকারীরা হবে ক্ষত্রীয় ও বৈশ্য। তারা ভার্সিটিতে মুড়িমাখা বিক্রির লাইসেন্স পাবে। অপরদিকে কোটা বিরোধীরা হবে শূদ্র।

তিনি বলেন, আমি কোটার পক্ষে হলেও আমার দাদা-নানা কেউই যুদ্ধ করেননি। এ ব্যাপারে আমি অনুতপ্ত। সম্ভব হলে তাদেরকে কবর থেকে তুলে জিজ্ঞাসাবাদ করতাম।

সিয়াম বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আমার কোনো অসম্মান নেই। হাইকোর্টের প্রতি সম্মান রেখেই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার অনুরোধ থাকবে। আর হ্যাঁ, আমিও সেদিন কোটার বিপক্ষে দাঁড়াবো। যেদিন কোটাধারীরা নিজেরাই একযোগে কোটার বিরুদ্ধে অবস্থান নিবে। সেই দিন যদি না আসে তাহলে শতভাগ কোটার মাধ্যমে পূর্ণ বর্ণবাদ প্রতিষ্ঠার দাবী থাকবে।