পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় শিক্ষক-গবেষকদের একযোগে কাজ করার আহবান

”HUC Members’Day in Bangladesh” শীর্ষক দু’দিনব্যাপি অনুষ্ঠানে চবি উপাচার্য

চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় ও হিমালয়ান ইউনির্ভাসিটি কনসোর্টিয়াম (এইচইউসি) সেক্রেটারিয়েটের যৌথ উদ্যোগে ইনস্টিটিউট অব ফরেস্ট্রি এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস গ্যালারিতে ২-৩ জুন ২০২৪ দু’দিন ব্যাপি “ঐটঈ গবসনবৎং’উধু রহ ইধহমষধফবংয” শীর্ষক অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। ২ জুন ২০২৪ সকাল ১০:০০ টায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উক্ত অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আবু তাহের। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চবি মাননীয় উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) প্রফেসর বেনু কুমার দে, ফরেস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. রাকিব আহমেদ, বান্দরবান বিশ^বিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ নুরুল ইসলাম ও চবি বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নাসিম হাসান। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয় (বুয়েট) এর প্রফেসর ড. মোঃ রেজাউর রহমানের সভাপতিত্বে এবং চবি বনবিদ্যা ও পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ আকতার হোসেন এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইসিআইএমওডি সেক্রেটারি লীড ড. চী হুয়াইন ত্রং (সাচি)।

মাননীয় উপাচার্য উপস্থিত সকলকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানান। তিনি এ ধরনের উদ্যোগের জন্য আয়োজকদের ভূঁয়সী প্রশংসা করেন। মাননীয় উপাচার্য বলেন, “বিশ^বিদ্যালয় হচ্ছে জ্ঞান সৃজন, বিতরণ ও সংরক্ষণের সর্বোচ্চ স্থান। বিশ^ায়নের এ যুগে যুগোপযোগী শিক্ষাব্যাবস্থা প্রণয়ন এবং সেমিনার-সিম্পোজিয়াম ও নতুন নতুন উদ্ভাবনী আইডিয়ার মাধ্যমে ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রত্যেককে স্ব স্ব ক্ষেত্রে কাজ করতে হবে; এজন্য নিজেদের সক্ষমতা অর্জনের বিকল্প নেই।” তিনি বলেন, “প্রযুক্তিগত জ্ঞান, নেটওয়ার্কিং, কোলাবরেশন, শিক্ষা বিনিময়, গবেষণা, লীডারশিপ, স্কীল ডেভেলপমেন্ট, টেকসই প্রযুক্তি, উদ্ভাবনী আইডিয়া, সময় জ্ঞান ইত্যাদি বিষয়ের উপর গুরুত্ব দিয়ে এ অঞ্চলের আত্ম-সামাজিক উন্নয়নে এবং পরিবেশ সুরক্ষায় একযোগে কাজ করতে হবে।” মাননীয় উপাচার্য বলেন, “পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় হিমালয় পর্বত এবং তার আশে পাশের জলবায়ু, পরিবেশগত এবং আর্থ-সামাজিক সমস্যাগুলির উপর গবেষণা ও শিক্ষায় আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক সহযোগিতা একান্ত জরুরী।” তিনি আন্তর্জাতিক জলবায়ু পরিবর্তন ও উন্নয়ন কেন্দ্র হিসেবে এইচইউসি’র কার্যক্রম অব্যাহত রেখে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে মর্মে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে চবি মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আবু তাহের এর উপস্থিতিতে ফরেস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এবং হিমালয়ান ইউনির্ভাসিটি কনসোর্টিয়াম (এইচইউসি) এর মধ্যে চার্টার সাইনিং অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে চবি বনবিদ্যা ও পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের শিক্ষকবৃন্দ, চবি বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষকবৃন্দ, দেশ-বিদেশের আমন্ত্রিত শিক্ষক-গবেষকবৃন্দ, শিক্ষার্থীবৃন্দ ও সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।


চবি’তে স্কিল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হবে

প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, চবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে চবি উপাচার্য

প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে ‘সংবর্ধনা’ অনুষ্ঠান ০১ জুন ২০২৪ সন্ধ্যা ৬ টায় চট্টগ্রাম স্টেশন রোডে অবস্থিত ‘হোটেল সৈকত’ এর সাঙ্গু ব্যাংকুইট হলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চবি সাবেক মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। উক্ত অনুষ্ঠানের উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম। সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আবু তাহের, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) প্রফেসর ড. মোঃ সেকান্দর চৌধুরী ও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, চট্টগ্রাম এর চেয়ারম্যান প্রফেসর রেজাউল করিম।
চবি মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আবু তাহের অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে শুভেচ্ছা জানান। তিনি প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করায় আয়োজক কমিটিসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, “আমার দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার মানোন্নয়নে বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। ইতোমধ্যে একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি স্কিল ডেভেলপমেন্ট এর উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নিয়েছি। তারই অংশ হিসেবে অতি দ্রæত সময়ের মধ্যে চবি’তে স্কিল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হবে।” চবি মাননীয় উপাচার্য বিশ^বিদ্যালয়ের সামগ্রীক উন্নয়নে এলামনাইসহ সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধক এফবিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম তাঁর বক্তব্যে বলেন, “একজন প্রাক্তন শিক্ষার্থী হিসেবে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের প্রতি আমাদেও দায়বদ্ধতা রয়েছে। এ দায়বদ্ধতার নিরিখে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রতিটি বিভাগের এলামনাইকে বিশ^বিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন বিশ^বিদ্যালয়ের উন্নয়নে স্কিল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার প্রতিষ্ঠাসহ সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশ^াস প্রদান করেন।
চবি সাবেক মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, “দেশের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের অন্যতম বিদ্যাপীঠ চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়। এ বিশ^বিদ্যালয়ের রয়েছে অতীত ঐতিহ্য ও গৌরব। প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা দেশে-বিদেশে তাঁদের মেধার সাক্ষর রেখে নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত হয়ে এ বিশ^বিদ্যালয়ের সুনাম ও মর্যাদা বৃদ্ধি করেছে; এটা সকলের জন্য অত্যন্ত আনন্দের ও গৌরবের।” তিনি বলেন, “এলামনাইরা হচ্ছে বিশ^বিদ্যালয়ের অতন্ত্র প্রহরী। বিশ^বিদ্যালয়ের একাডেমিক, প্রশাসনিক ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে এলামনাইদের এগিয়ে আসার পাশাপাশি বিশ^বিদ্যালয়ের সম্পদ সুরক্ষায় অতন্ত্র প্রহরীর মতো ভূমিকা রাখতে হবে।” চবি সাবেক মাননীয় উপাচার্য চবি নবনিযুক্ত মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আবু তাহের এর সুযোগ্য নেতৃত্বে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় আন্তর্জাতিক মানের বিশ^বিদ্যালয়ে উন্নীত হবে মর্মে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।
সংবর্ধিত অতিথি চবি মাননীয় উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) প্রফেসর ড. মোঃ সেকান্দর চৌধুরী একটি চমৎকার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, চবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের পক্ষ থেকে তাঁকে, চবি মাননীয় উপাচার্য এবং চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা প্রদান করায় আয়োজকদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।
প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, চবি’র আহবায়ক মোহাম্মদ শাহ আলম এর সভাপতিত্বে এবং সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আবু তালেব বেলাল ও আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব ফজলুল কবির খসরুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আজিজ উদ্দীন হায়দার। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক সভাপতি এডভোকেট মফিজুল হক ভূইয়া, হুমায়ুন কবির চৌধুরী কাঞ্চন, লেয়াকত হোসেন খোকন, রাশেদ মনোয়ার, অধ্যাপক আ. ক. ম. গিয়াস উদ্দিন, এডভোকেট মোতাছাম বিল্লাহ, সাহেদুর রহমান, এইচ. এম. সালামত উল্লাহ, আলাউদ্দিন, মোঃ সরওয়ার, শহীদ, মনছুর আহমেদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, চবি’র নতুন কার্যকরী কমিটি ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানে সমিতির পক্ষ থেকে সংবর্ধিত অতিথিদের সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন সমিতির সদস্য হাফেজ ছালামত উল্লাহ। উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী সমিতি, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের নেতৃবৃন্দসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিতি ছিলেন।