আনোয়ারা উপজেলা পরিষদের নতুন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল

আনোয়ারা প্রতিনিধি :: তৃতীয় ধাপে আনোয়ারা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। ভোট যুদ্ধে চেয়ারম্যান পদে কাজী মোজাম্মেল হক আনারস প্রতীক ৫৮ হাজার ৮৩০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৌহিদুল হক চৌধুরী দোয়াত কলম প্রতীকে ৩৬ হাজার ৮০৭ ভোট পান।

আজ বুধবার সকাল ৮টা থেকে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল থেকে ভোট কেন্দ্রে নারী ও পুরুষ ভোটারের সরব উপস্থিতি দেখা যায়। যা দীর্ঘ ১৬ বছর পর আনোয়ারায় ভোটারদের সর্বোচ্চ উপস্থিত হয়।

এদিকে সকাল থেকে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হলেও বেলা গড়াতে উপজেলার বেশ কয়েকটি ভোট কেন্দ্রে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা, প্রভাব বিস্তার করে কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করে। তবে বড় ধরনের সহিংসতার ঘটনা ঘটেনি। মূলত অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়শা খান এমপি ও সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির সমর্থিত দুই প্রার্থীর মধ্যে ভোটযুদ্ধ হওয়ায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এমন নির্বাচন আনোয়ারাবাসী দেখেছে দীর্ঘ দশ বছর পরে। এদিকে নির্বাচন কমিশন ইসির নির্দেশে আনোয়ারা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আনোয়ারায় সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ভোট গ্রহণের জন্য সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য কেন্দ্র দখল ও ব্যালট পেপার ছিনতাই সহ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ঘটনা ঘটেনি।

অবশেষে ভোট যুদ্ধে চেয়ারম্যান পদে কাজী মোজাম্মেল হক আনারস প্রতীক ৫৮ হাজার ৮৩০ ভোট তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৌহিদুল হক চৌধুরী দোয়াত কলম প্রতীকে ৩৬ হাজার ৮০৭। ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ এম এ মান্নান মান্না চশমা প্রতীকে ৩১ হাজার ১৫৭। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবু জাফর চৌধুরী টিয়া পাখি প্রতীক ৩০ হাজার ৪৩৭ ভোট৷ অপরদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে এড. চুমকি চৌধুরী হাঁস প্রতীকে ৪৫ হাজার ৯৪০। তার প্রতিদ্বন্দ্বী পারভীন হাবিব কলস প্রতীকে ২৫ হাজার ৮২ ভোট।

এতে বেসরকারি ফলাফলে জয়লাভ করেন চেয়ারম্যান পদে কাজী মোজাম্মেল হক, ভাইস চেয়ারম্যান পদে এম এ মান্নান মান্না ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে এড চুমকি চৌধুরী।

রাতে আনোয়ারা উপজেলা পরিষদ হল রুমে প্রার্থীদের মাঝে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হয়।

ফলাফল পেয়ে বিজয়ী প্রার্থীরা সমর্থকদের নিয়ে আনন্দ মিছিল করেন।