বসন্ত উৎসবের আয়োজন করল চসিক

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে সৃজনশীল প্রকাশনা পরিষদ ও নাগরিক সমাজের আয়োজনে বুধবার সকালে সিআরবি শিরীষ তলায় অমর একুশে বই মেলার উন্মুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত হলো বসন্ত উৎসব। যেখানে শীতে জমা থেকে জীবনের অসাড়তাকে ভেঙে প্রাণে-প্রাণের মিলল প্রাণ।

প্রথমেই অপর্ণা চরণ সিটি করপোরেশন বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সমবেত কন্ঠে পরিবেশন করেন বসন্তের গান। এরপর সম্মেলক নৃত্য পরিবেশন করেন কৃষ্ণ কুমারী সিটি করপোরেশন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, একক গান পরিবেশন করেন,প্রিয়ন্তী ও উদিতা,কাট্টলী সিটি করপোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, কুসুম কুমারী সিটি করপোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কুয়াইশ বুড়িশ্চর সিটি করপোরেশন কলেজ ও দেওয়ান হাট সিটি কর্পোরেশন কলেজ এর শিক্ষার্থীরা।

ফাগুন আর ভালোবাসার দিনের আবেশে ততক্ষণে দর্শক সারি পরিপূর্ণ হয়েছে ভালোবাসার মানুষের লাল আর বাসন্তী রঙের সাজে। তাতে অংশ নেয় নানা বয়সি মানুষ।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাঝে অনুষ্ঠিত হয় বসন্তকথন পর্ব। এই পর্বে বই মেলা পরিষদের সভাপতি কাউন্সিলর ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বলেন, এই উৎসব সত্য ও সুন্দরের জয়ের প্রতীক।’আমরা আপনাদের নিয়ে বসন্তের অবগাহনে মেতে উঠতে চাই।বসন্তের যে রঙের ছটা, তা সবার ঘরে ঘরে পৌঁছে যাক, বর্ণিল যে আনন্দ, সেটিই আমাদের কাম্য।

তরুণ প্রজন্মের জন্য বলতে চাই- প্রকৃতি আমাদের আসল জায়গা। আমাদের যে অর্জন তার সবকিছুই প্রকৃতির কাছ থেকে। আসুন আমরা নিজেদের প্রকৃতির মধ্যে বিলিয়ে দিই।

তিনি বলেন, বসন্ত শুধু অশোক-পলাশ-শিমুলেই উচ্ছ্বাসের রং ছড়ায় না, আমাদের ঐতিহাসিক রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে শহীদদের রক্তের উপরও রং ছড়ায়। এই বসন্তে বাঙালির দ্রোহ প্রেম আর দেশপ্রেমের অনন্য নজির রয়েছে। কেননা আমাদের ভাষা- স্বাধীনতা সংগ্রাম এই বসন্তে শুরু হয়েছিল। তাই এই বসন্তে বাঙালি হৃদয় কিছুতেই ঘরে থাকে না। যেমনি থাকেনি- বায়ান্ন ও একাত্তরে। যেকোনো সংকটে বাঙালিকে জেগে উঠতে এই বসন্ত সাহস যুগিয়েছে। একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বিশ্ব দরবারে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে সামনে এগিয়ে যাবে এই মর্মে আমাদের কাজ করতে হবে এ হোক আমাদের শপথ।

চসিক উপসচিব বই মেলা কমিটির সমন্বয়ক আশেক রসুল চৌধুরী টিপু বলেন, মানুষ প্রকৃতি ধ্বংস করছে আমরা প্রকৃতিকে সৃষ্টিশীলতার মাধ্যমে সুকোমল বৃত্তের মাঝখানে বাঁচানোর চেষ্টা করছি। তাই তরুণ প্রজন্মের জন্য বলতে চাই- প্রকৃতি আমাদের আসল জায়গা। আমাদের যে অর্জন তার সবকিছুই প্রকৃতির কাছ থেকে। আসুন আমরা নিজেদের প্রকৃতির মধ্যে বিলিয়ে দিই।

দ্বিতীয় পর্বে বসন্ত ওভালবাসার গান ও নৃত্য পরিবেশন করেন মহানগর সাংস্কৃতিক সমন্বয় পরিষদ, সঞ্চারী নৃত্য কলা একাডেমি, দ্যা স্কুল অব ক্যালাসিক্যাল এন্ড ফোক ডান্স,চারুলতা সংগীত একাডেমি, বেনুকা ললিতা কলা একাডেমি।

সন্ধ্যায় মীরাক্কেল সিজন নাইন জি-বাংলা কলকাতার প্রখ্যাত মীরাক্কেল আরমান বই মেলা মঞ্চে গানও কৌতুক পরিবেশনএবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যান্ড ছায়াতরু গান পরিবেশন করেন।