আলেমদের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিদেরও যৌতুক ও মাদকের বিরুদ্ধে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে

চট্টগ্রাম-৮ আসনের সাংসদ আবদুচ ছালাম বলেন, যৌতুক ও মাদক একটি সামাজিক ব্যাধি। এই ব্যাধি থেকে বাঁচতে হলে আমাদের সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। তিনি আল্লামা আবুল কাশেম নুরীর ভূয়াসি প্রশংসা করে বলেন একজন আলেম হয়েও যৌতুক ও মাদকবিরোধী এ সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলেছেন। তিনি আরো বলেন, মাদকের সহজলভ্যতা যুব তরুণদের বিপথে ঠেলে দিচ্ছে। হাত বাড়ালেই মিলছে ইয়াবাসহ সর্বনাশা মাদক। যুব সমাজ ফেসবুক মোবাইল আসক্তিতে আকণ্ঠ নিমজ্জিত থেকে নিজেদের সম্ভাবনাময়ী জীবনকে অর্থহীন করে তুলছে। নিজ নিজ অবস্থান থেকে এব্যাপারে সবাইকে সচেতন করে তোলার দায়িত্ব পালন করতে হবে। আলেম-ইমাম-খতিবদের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিসহ সর্বস্তরের পেশাজীবীদেরকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। ১২ ফেব্রুয়ারি নগরীর জিইসি মোড়স্থ ওয়েল পার্কের অফিসে রজভীয়া নূরীয়া কমিটি বাংলাদেশের নেতৃবৃন্দের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারী শনিবার দুপুর ২টা হতে চট্টগ্রাম লালদিঘী চত্বরে রজভীয়া নুরীয়া কমিটি বাংলাদেশের উদ্যোগে অনুষ্ঠিতব্য যৌতুক-মাদকবিরোধী মহাসমাবেশ এবং বর্ণাঢ্য র‌্যালীতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার সম্মতি জ্ঞাপন করেন এবং সমাবেশের সফলতা কামনা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন যৌতুক ও মাদকবিরোধী মহাসমাবেশ প্রস্তুতি কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ কাদেরী, সদস্য মুহাম্মদ জাকারিয়া, মুহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন সিদ্দিকী সহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।