ওমানে রাউজানের এক প্রবাসীর মৃত্যুতে নেমে এসেছে শোকের

শফিউল আলম, রাউজান ঃপরিবারের হাল ধরতে দীর্ঘ প্রবাস জীবনের সর্বশেষ ছয় বছর পূর্বে দেশে এসেছিলেন ওমান প্রবাসী রাউজানের ১০ নং পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের আকবর সিকদার বাড়ির মৃত মফজল আহমদের বড় পুত্র মোঃ সোলাইমান। ভিসা জটিলতা জনিত কারণে ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও বাড়িতে আসার প্রতীক্ষা বাড়ছিল তার। পরিবারের সদস্যদের সাথে আলাপে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে দেশে আসার কথাও জানিয়েছিল তিনি। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, প্রবাসী মোঃ সোলাইমান দীর্ঘ প্রবাস জীবন থেকে দেশে ফিরছে ঠিকই কিন্তু কফিনে বন্দি হয়ে।
প্রবাসী সোলাইমানের বড় পুত্র মোঃ আব্দুল্লাহ জানান, গত ৩ ডিসেম্বর রোববার প্রতিদিনের মতো কাজে যান তিনি। সকাল ৯টার দিকে ওমানের রোস্তাক এলাকায় কর্মস্থলে হঠাৎ অসুস্থতাবোধ করে লুটিয়ে পড়েন তিনি। সেখান থেকে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। আকস্মিক এমন দুঃসংবাদ শুনে স্ত্রী, সন্তান ও স্বজনরা আহাজারিতে ফেটে পড়েন।
স্থানীয় লোকজন জানান, প্রবাসী সোলাইমান পরিবারের হাল ধরতে দীর্ঘ সময় ধরে প্রবাস জীবনে আছেন। খুব সহজেই সবার সাথে মিশতেন। শান্ত ও অমায়িক স্বভাবের এই মানুষটির
আকস্মিক মৃত্যু সংবাদে এলাকায় শোকাবহ পরিবেশ বিরাজ করছে। বিবাহিত জীবনে সে দুই পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক।
পূর্ব গুজরা ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ দিদারুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের সভাপতি সিআইপি ইয়াছিন চৌধুরী জানান, ওমানে মোঃ সোলাইমান নামের রাউজানের এক প্রবাসীর মৃত্যুর সংবাদ পেয়েছি। তার লাশ দেশে প্রেরণের বিষয়ে চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে।
প্রবাসী মোঃ সোলাইমান রাউজান প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি নেজাম উদ্দিন রানার শ্বশুর। তার মৃত্যুতে রাউজান প্রেস ক্লাব, রাউজান সাহিত্য পরিষদসহ বিভিন্ন সংগঠন শোক প্রকাশ করেছেন।