চবি শাখা ছাত্রলীগের ২৩ জনকে শোকজ

উপজেলা নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র দখলকে কেন্দ্র করে দেশীয় অস্ত্রের মহড়া ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের ২৩ জনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

মঙ্গলবার (২৮ মে) সিসিটিভি ফুটেজসহ বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত যাচাই-বাছাই শেষে ২৩ জনকে চিহ্নিত করে শোকজ করা হয়।
পাশাপাশি তাদের পরিবারের কাছেও পাঠানো হয়েছে নোটিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও তদন্ত কমিটির সহকারী সচিব মোহাম্মদ রিফাত রহমান বলেন, আমরা বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত ও ফুটেজ দেখে নিশ্চিত হওয়ার পর ২৩ জনকে শোকজ করেছি।
একইসঙ্গে তাদের হল, ডিপার্টমেন্ট ও পরিবারের কাছেও নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তিন কর্ম দিবসের মধ্যে তাদের কাছে জবাব চাওয়া হয়েছে। এরপরই তাদের বিরুদ্ধে ডিসিপ্লিনারি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, মূলত দুইটি ঘটনায় এ শোকজ করা হয়েছে। প্রথমটি চবি ল্যাবরেটরি স্কুলের সামনে, দ্বিতীয়টি আব্দুর রব হলের সামনে। কিছু শিক্ষার্থী আমাদের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়েছিল। তাদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে তদন্তের স্বার্থে শোকজকৃতদের নাম গোপন রাখা হয়েছে।

এর আগে গত ২১ মে দুপুর ২টায় চবি শাখা ছাত্রলীগের দুই উপগ্রুপ- চুজ ফ্রেন্ডস উইথ কেয়ার (সিএফসি) ও বিজয় গ্রুপের মধ্যে ভোটকেন্দ্র দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় বিজয়ের কর্মীরা মোটরসাইকেল প্রতীক ও সিএফসির কর্মীরা ঘোড়া প্রতীকের পক্ষে কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করে।

এনিয়ে তাদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে বিজয় গ্রুপের অনুসারী সালাহ উদ্দিনকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে সিএফসির কর্মীরা। এ ঘটনার জেরে দুই পক্ষের কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় অন্তত ৫ জন আহত হন।

ঘটনা তদন্তে সহকারী প্রক্টর এনামুল হককে আহ্বায়ক, সহকারী প্রক্টর মোহাম্মদ রিফাত রহমানকে সদস্য সচিব ও সহকারী প্রক্টর তানভীর হাসানকে সদস্য করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।