ঐশ্বরিয়ার সংসারে ভাঙনের সুর!

বলিপাড়ায় এই মুহূর্তে ‘টক অব দ্যা টাউন’-এ পরিণত হয়েছেন সেলিব্রেটি অভিষেক বচ্চন ও তার স্ত্রী বলি অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রায়। সম্প্রতি এ দুই তারকা জুটির বিবাহ বিচ্ছেদের গুঞ্জন আবারও জোরালো হয়ে উঠেছে বলিউড মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চনের তিন হাজার দুইশ কোটি রুপির সম্পত্তি ভাগ বাটোয়ারার ইস্যুকে কেন্দ্র করে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার বরাতে জানা গেছে, অমিতাভ বচ্চনের সম্পত্তির কোনো অংশই পাননি ঐশ্বরিয়া। শোবিজ পাড়ায় এমন খবর ছড়িয়ে পড়তেই অভিষেক আর ঐশ্বরিয়ার বিবাহ বিচ্ছেদের বিষয়টি জোরালো হয়ে ওঠে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ও নেটপাড়ায়।

বেশকিছু দিন ধরেই চলছিল এ তারকা জুটির বিবাহ বিচ্ছেদের গুঞ্জনটি। গুঞ্জনের শুরু, ক্যামেরায় একজনের অন্যজন থেকে দূরে অবস্থান করা থেকে। এ ছাড়া দীর্ঘ সময় ধরে কোনো অনুষ্ঠানে একসঙ্গে ছবি তোলেন না তারা। জন্মদিনেও একাই দেখা যায় অভিষেক আর ঐশ্বরিয়াকে। তাদের সংসারে পারিবারিক সমস্যা যে বেশ জোরালো সে কারণ এবার প্রকাশ্যে এলো।

সম্প্রতি অমিতাভ তার সম্পত্তি সমান দুইভাগে ভাগ করে দিয়েছেন ছেলে অমিতাভ আর মেয়ে শ্বেতার মধ্যে। বচ্চন পরিবারের উত্তরাধিকারী ছেলে হিসেবে সম্পত্তির কোনো বেশি অংশই পাননি ছেলে অভিষেক।

৩২০০ কোটি রুপির সম্পত্তির ১৬০০ কোটি অমিতাভ তার মেয়ে শ্বেতার নামে করে দিয়েছেন। আর বাকি ১৬০০ কোটি ছেলে অভিষেকের নামে। আর পুত্রবধূ ঐশ্বরিয়ার নামে সম্পত্তির কোনো অংশই দেননি শ্বশুর অমিতাভ। যা আবারও বলিপাড়ায় জোরালো গুঞ্জন তুলেছে অভিষেক- ঐশ্বরিয়ার বিচ্ছেদের।

এদিকে নেটিজেন আর ভক্তরা অমিতাভের সম্পত্তি ভাগ বাটোয়ারার এমন কাণ্ড দেখে আন্দাজ করছেন, খুব শিগগিরই অফিশিয়ালি ডিভোর্সের পথে হাঁটবেন বলিউড তারকা অভিষেক বচ্চন আর ঐশ্বরিয়া রায়।

প্রসঙ্গত, পরস্পরকে ভালোবেসে ২০০৭ সালে সাত পাকে বাঁধা পড়েন অভিষেক- ঐশ্বরিয়া। দীর্ঘ ১৬ বছরের দাম্পত্য জীবনে তাদের সংসারে রয়েছে একমাত্র কন্যা সন্তান আরাধ্য বচ্চন।