উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারী ‘তালিকাভুক্ত অপরাধী’ পলাশ

    চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের ময়ূরপঙ্খী উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টাকালে কমান্ডো অভিযানে নিহত যুবকের পরিচয় জানা গেছে। তার নাম পলাশ আহমেদ। তিনি র‌্যাবের ‘তালিকাভুক্ত অপরাধী’।

    পলাশ নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার পিরিজপুরের দুধঘাটা ইউনিয়নের বাসিন্দা। তার বাবার নাম পিয়ার জাহান সরদার। সোমবার র‌্যাবের পাঠানো খুদে বার্তায় এ সব তথ্য জানানো হয়।

    র‌্যাবের বার্তায় বলা হয়, চট্টগ্রামে কমান্ডো অভিযানে নিহত ওই যুবকের আঙুলের ছাপ র‌্যাব ক্রিমিনাল ডেটাবেইসের একজন অপরাধীর সঙ্গে মিলে যায়। সেখানে রক্ষিত তথ্য অনুযায়ী, তার নাম মো. পলাশ আহমেদ। প্লেনটি ঢাকা থেকে দুবাইগামী হলেও পলাশ ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী অভ্যন্তরীণ রুটের যাত্রী ছিলেন।

    প্রসঙ্গত, ঢাকা থেকে দুবাই যাচ্ছিল বাংলাদেশ বিমানের নতুন উড়োজাহাজ ময়ূরপঙ্খী। উড়োজাহাজটি ১৫ হাজার ফুট ওপরে উঠার পর যাত্রীদের আসনে থাকা এক যুবক উঠে ককপিটের দিকে আসেন। এ সময় ওই যুবক এক ক্রুর কাছে গিয়ে বলেন, আমি বিমানটি ছিনতাই করব। আমার কাছে পিস্তল ও বোমা আছে। ককপিট না খুললে আমি বিমান উড়িয়ে দেব। এর মধ্যে অন্য কেবিন ক্রুরা ককপিটে থাকা পাইলট ও সহকারী পাইলটকে গোপনে বার্তা দেন যে, উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টা করা হচ্ছে। ততক্ষণে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে অবতরণ করে উড়োজাহাজ। এরপরই রানওয়েতে বিমানটি ঘিরে ফেলে সেনাবাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশ। পরে কমান্ড অভিযানে ওই যুবক নিহত হন।