রাইফার মৃত্যুর মামলায় অভিযোগপত্র আমলে নিয়েছেন আদালত

মেহেদিবাগের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসায় অবহেলায় রাফিদা খান রাইফার মৃত্যু ঘটনায় অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় চার চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তদন্তকারী কর্মকর্তার দেওয়া অভিযোগপত্রটি আমলে নিয়েছেন আদালত।

রোববার (১২ মে) চট্টগ্রামের চতুর্থ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের আদালতে অভিযোগপত্রটি উপস্থাপন করা হয়।
অভিযুক্ত চার চিকিৎসক হলেন- ডা. লিয়াকত আলী খান, ডা. বিধান রায় চৌধুরী, ডা. দেবাশীষ সেনগুপ্ত ও ডা. শুভ্র দেব।

মামলার বাদী সাংবাদিক রুবেল খানের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. ইকবাল হোসেন বলেন, রাফিদা খান রাইফার মৃত্যু ঘটনায় অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় চার চিকিৎসকের বিরুদ্ধে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) চট্টগ্রাম মেট্টোর তদন্তকারী কর্মকর্তার দেয়া অভিযোগপত্রটি আদালতে জমা দিয়েছিলেন, সেটি আজ (রোববার) আমলে নিয়েছেন আদালত।
রোববার শুনানিতে আসামিদের মধ্যে তিনজন উপস্থিত ছিলেন। অপর আসামির জন্য সময়ের আবেদন করা হলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

তিনি আরও বলেন, নিয়ম অনুসারে মামলাটি বিচার নিষ্পত্তির জন্য চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলাটি চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালতে অথবা মহানগর দায়রা জজ নির্ধারিত অন্য কোনো আদালতে পরবর্তীতে এই মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। সেই শুনানির দিন এখনো ধার্য হয়নি।

এর আগে গত ২৫ মার্চ পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রো ইউনিটের পরিদর্শক আবু জাফর মোহাম্মদ ওমর ফারুক নগর পুলিশের প্রসিকিউশন শাখায় অভিযোগপত্রটি জমা দেন।

ওই সময় পিবিআই পরিদর্শক আবু জাফর মোহাম্মদ ওমর ফারুক বলেন, অবহেলাজনিত মৃত্যু ঘটানোর অপরাধে দণ্ডবিধির ৩০৪ (ক) ও ১০৯ ধারায় চারজন ডাক্তারের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র প্রসিকিউশন শাখায় জমা দিয়েছি। প্রসিকিউশন শাখা থেকে সেটি আদালতে দাখিল করা হবে। এরপর বিচারের জন্য প্রস্তুত হয়ে সেটি জজ আদালতে যাবে এবং প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শেষে বিচার শুরু হবে।

২০১৮ সালের ২৯ জুন রাতে চট্টগ্রামের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে অবহেলা, অদক্ষতার কারণে সাংবাদিক রুবেল খানের আড়াই বছরের শিশু কন্যা রাফিদা খান রাইফা মারা যায়।

রাইফার অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় রাইফার বাবা রুবেল খান বাদী হয়ে ২০১৮ সালের ২০ জুলাই ৪ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার চার চিকিৎসককে আসামি করা হয়।

সাংবাদিক-কন্যা রাইফা হত্যা মামলায় দীর্ঘ তদন্ত শেষে অভিযোগপত্র জমা দেওয়ায় পিবিআইকে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি তপন চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক ম শামসুল ইসলাম।

এক বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর কারণে যে আস্থাহীনতা তৈরি হয়েছে তা থেকে উত্তরণের জন্য রাইফা হত্যার সুষ্ঠু বিচার দ্রুত নিশ্চিত করতে হবে।