হায়দার আকবর খান রনো মারা গেছেন

প্রবীণ রাজনীতিক বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির উপদেষ্টা হায়দার আকবর খান রনো মারা গেছেন। শুক্রবার রাত ২টা ৫ মিনিটে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।
সিপিবির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, রনো ভাই আর নেই। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাত ২টা ৫ মিনিটে মারা গেছেন।

দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসতন্ত্রের নানা জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি। গত ৬ মে পান্থপথের হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়েছিল। অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিটে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। সেখানেই মধ্যরাতে মারা যান তিনি।

পরিবারের সদস্যরা দেশের বাইরে থাকায় হায়দার আকবার খান রনোর মরদেহ আগামী সোমবার পর্যন্ত শমরিতা হাসপাতালের মর্গে রাখা হবে। স্বজনরা দেশে ফিরলে শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য নেয়া হবে এই প্রবীণ রাজনীতিকের মরদেহ। এরপর বনানী কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে তাকে। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক হায়দার আকবর খান রনো ১৯৬২ সালের সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলনের সময় পূর্ব পাকিস্তান ছাত্র ইউনিয়নের নেতৃত্বে ছিলেন।
বিজ্ঞাপন
তিনি ৯০ দশকের সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলনসহ এরশাদ পতনের গণঅভ্যুত্থানের সংগঠক ছিলেন।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সঙ্গে দীর্ঘদিন থাকলেও ২০১০ সালে মতভিন্নতার কারণে এই দলটি ছেড়ে সিপিবিতে যোগ দেন। ২০১২ সালে তাকে সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য করা হয়। এরপর তিনি সিপিবির উপদেষ্টা হন। রাজনীতিকের পরিচয়ের বাইরে তিনি তাত্ত্বিক ও লেখক। তার প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ১৩।
১৯৪২ সালের ৩১ আগস্টে কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন হায়দার আকবর খান রনো। তার পৈতৃক নিবাস নড়াইলের বরাশুলা গ্রামে।