দেশে দক্ষ, যোগ্য ও আলোকিত মানুষ তৈরিতে শিক্ষকদের অবদান অনস্বীকার্য

‘এসো হে নবীন, এসো হে দ্বারে নবযুগ ডাকিছে তোমারে…’ এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় বাংলা বিভাগের নবীনবরণ অনুষ্ঠান ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ বেলা ১১:৩০ টায় চবি কলা ও মানববিদ্যা অনুষদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চবি মাননীয় উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) প্রফেসর বেনু কুমার দে। অনুষ্ঠান প্রধান বরণ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন চবি বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড. মহীবুল আজিজ। চবি বাংলা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. তাসলিমা বেগম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আনোয়ার সাঈদ, সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ নেয়ামত উল্যাহ ভূঁইয়া ও সহকারী অধ্যাপক কাইছার উদ্দিন।
মাননীয় উপাচার্য তাঁর বক্তব্যের শুরুতে ভাষাশহীদ সহ শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং অনুষ্ঠানে উপস্থিত নবীন শিক্ষার্থীসহ সকলকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানান। তিনি বলেন, “দেশের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের অন্যতম বৃহৎ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী বিভাগ বাংলা বিভাগ। এ বিভাগের শিক্ষকরা এক একজন আলোকবর্তিকা হয়ে ইতোমধ্যে রাষ্ট্রীয় স্বাধীনতা পদক ও একুশে পদকসহ বিভিন্ন সম্মানজনক পুরষ্কারে ভূষিত হয়ে এ বিশ^বিদ্যালয়ের সম্মান বৃদ্ধি করেছেন।” মাননীয় উপাচার্য আরও বলেন, “এ বিভাগে অনেক স্বনামধন্য ও গুণী শিক্ষক-গবেষক শিক্ষকতা করে দেশে দক্ষ, যোগ্য ও আলোকিত মানুষ তৈরিতে অবদান রেখে চলেছেন। ঐতিহ্যবাহী বাংলা বিভাগে যারা অধ্যয়নের সুযোগ পেয়েছে তাদেরকে যোগ্য উত্তরাধিকারী হয়ে বিভাগের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে সর্বদা সচেষ্ট থাকতে হবে।” এ জন্য নবীন শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার পাশাপাশি সৃজনশীল ও মানবিক মানুষ হিসেবে নিজেদের তৈরি করে একজন যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার জন্য মাননীয় উপাচার্য আহবান জানান। অনুষ্ঠানে নবীনদের পক্ষে মানপত্র পাঠ করেন বিভাগের শিক্ষার্থী হাফিজুল ইসলাম খান শিহাব। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উক্ত বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ রাব্বিউল হাসান শান্ত ও মাজিদা আক্তার লিপি। অনুষ্ঠানে উক্ত বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ, শিক্ষার্থীবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং নাটক ‘অপরিচিতা’।