ফুটপাত উদ্ধারে উচ্ছেদ অভিযান চলবে: মেয়র

অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে ফুটপাত, নালা, রাস্তা উদ্ধারে উচ্ছেদ অভিযান ও মনিটরিং চলমান রাখার ঘোষণা দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো রেজাউল করিম চৌধুরী।

বুধবার টাইগারপাসস্থ চসিক কার্যালয়ে নগরীতে চলমান উচ্ছেদ অভিযানকে সফল করতে বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিনিধিদের সাথে সভা করেন মেয়র। এসময় মেয়র প্রতিনিধিদের বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ করেন এবং অভিযান চলমান রাখার ঘোষণা দেন।

সাক্ষাৎকালে মেয়র বলেন, মানুষের দুর্ভোগ ও দুর্ঘটনা কমাতে আমি অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদে অভিযান চালিয়েছি এবং সামনেও এধারা চলমান থাকবে। কোন চাপ বা কারো কথায় এ অভিযান বন্ধ হবেনা। বিশেষ করে নিউমার্কেট, আগ্রাবাদ এবং জিইসি নগরীর এই তিন প্রাণকেন্দ্রকে দখলমুক্ত করে সৌন্দর্যবর্ধন করা আমার লক্ষ্য। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা চাই আমি।

সভায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় বলেন, ফুটপাত উদ্ধারে মেয়র মহোদয়ের উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই৷ ফুটপাত মুক্ত রাখতে চাই আমরা৷ উচ্ছেদ অভিযানের জন্য নগরীর কোন কোন পয়েন্টকে প্রায়োরিটি দেয়া হবে তা ঠিক করে সবাই মিলে কাজ করলে চট্টগ্রাম শহরের ফুটপাত দখলমুক্ত রাখা সম্ভব।

সভায় চসিকের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুহম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র আবদুস সবুর লিটন, গিয়াস উদ্দিন, কাউন্সিলর নিছার উদ্দিন আহমেদ (মঞ্জু), নজরুল ইসলাম বাহাদুর, মো. নুরুল আমিন, মো. ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, নূর মোস্তফা টিনু, সচিব খালেদ মাহমুদ, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা লতিফুল হক কাজমী, আইন কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন, স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট মনীষা মহাজন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট চৈতী সর্ববিদ্যা, শাহরীন ফেরদৌসী ।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন এডিশনাল পুলিশ কমিশনার আবদুল মান্নান মিয়া, উপ-পুলিশ কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান, এন এম নাসিরুদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রহমান, আনসার ও ভিডিপির সার্কেল অ্যাডজুট্যান্ট এস এম আনিসুর রহমান, র‌্যাব-৭ এর ডিএডি খলিলুর রহমান, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম মৃধা, ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো. আবদুল্লাহ হারুন পাশাসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিগণ সভায় নিজ নিজ দপ্তরের পক্ষে মতামত তুলে ধরেন।