জনগণের ক্ষমতা কেড়ে নিয়েছে সরকার

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বলেছেন, গত ৭ জানুয়ারি ডামি নির্বাচনের পর সরকার এখন আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠেছে। আজকে জনগণের ক্ষমতা কেড়ে নিয়েছে সরকার। অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে এক ভয়াবহ নৈরাজ্য চলছে। বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায় ভাবে দীর্ঘদিন ধরে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে। দ্রব্যমূল্যের চরম উর্ধ্ব গতিতে সাধারণ মানুষ দিশেহারা। দেশের সার্বভৌমত্ব দুর্বল করা হয়েছে। দেশের মানুষের জীবন ও ভূমি এখন অরক্ষিত। দেশ এক চরম অন্ধকারের মধ্যে নিমজ্জিত হয়েছে। আর এই পরিস্থিতির মধ্যে দেশ এখন ভয়াবহ পরিণতির দিকে যাচ্ছে। তাই এই সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের আন্দোলন চলছে এবং চলবে। জনগণের ক্ষমতা জনগণের কাছে ফিরিয়ে দিতে হবে। বিএনপির আন্দোলন গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার পুনরুদ্ধারের আন্দোলন।

তিনি বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে কদমতলী শুভপুর বাস ষ্টেশন এলাকায় সরকারের পদত্যাগ, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি, ভারত বাংলাদেশ এবং মিয়ানমার সীমান্তে বাংলাদেশী হত্যার প্রতিবাদে সদরঘাট ও ডবলমুরিং থানা বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে স্থানীয় দোকানদার, পথচারী ও সাধারণ মানুষের মাঝে লিফলেট বিতরণ করেন।

তিনি বলেন, বিএনপির কাছে অবৈধ ক্ষমতা নয়, জনগণের স্বার্থই বড়। এ কারণে বিএনপি কোনোভাবেই দেশ ও জনগণের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে কারও সঙ্গে আপস করেনি। তাই বিএনপির ডাকে সাড়া দিয়ে দেশের মানুষ শেখ হাসিনার ব্যালট প্রত্যাখ্যান করে ৭ জানুয়ারির ভোট বর্জন করেছিলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এস এম সাইফুল আলম, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, ডবলমুরিং থানা বিএনপির সভাপতি মো. সেকান্দর, সাধারণ সম্পাদক হাজ্বী বাদশা মিয়া, কেন্দ্রীয় যুবদলের সদস্য সাইফুর রহমান শপথ, মহানগর বিএনপি নেতা মোস্তাফিজুর রহমান ভুলু, সদরঘাট থানা বিএনপির সহ সভাপতি ইব্রাহিম মান্নান মিনু, ডবলমুরিং থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুউদ্দিন সোহেল, সদরঘাট থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হোসেন, ২৮ নং ওর্য়াড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান, বিএনপি নেতা মো. শাহজাহান, ২৯ নং ওর্য়াড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আজিজ, রবিউল হোসেন, ২৭ নং ওর্য়াড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মোস্তফা, ২৪ নং ওর্য়াড বিএনপি নেতা আবু সৈয়দ কালু, মহানগর যুবদলের সহ সভাপতি মুজিবুর রহমান, সহ সম্পাদক নুর জাহেদ বাবলু, সেচ্ছাসেবক দলের সহ সভাপতি জসিম উদ্দীন রকি, সহ সাধারণ সম্পাদক মো. আলমগীর, সদরঘাট থানা যুবদলের সি. যুগ্ম আহবায়ক নুর খাঁন, সদস্য সচিব মো. রাশেদ, সেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব আনোয়ারুল আবেদিন মুন্না, যুগ্ম আহবায়ক শেখ আলম রাজু, শ্রমিক দল নেতা আবু তাহের, মো. সিরাজ, মো. দুলাল, আবদুল হান্নান, যুবদল নেতা মো. ইমরান, আব্দুল জলিল প্রমূখ।